শীতকালে শরীর সুস্থ রাখার উপায়

শীতকালে শরীর সুস্থ রাখার সেরা টিপস।

বর্ষাকাল শেষ হওয়ার সাথে সাথে শীতকাল শুরু হয়। সে সময় প্রচন্ড ঠান্ডা অনুভূত হয়। শীতকালে তাপমাত্রা হ্রাস পাওয়ার কারণে আমাদের শরীর সুস্থ রাখা কঠিন হয়ে পড়ে। তাই শীতকালে আমাদের শরীরের বাড়তি যত্ন নিতে হবে। বিশেষ করে ছোট বাচ্চা বা বয়স্কদের আলাদাভাবে যত্ন নেওয়া উচিত। কারণ শীতকালে সর্দি, কাশি, ফ্লু-এর মত ঘটনা বাড়ে।

বাত,সোরিয়াসিস, একজিমা, হাঁপানি ইত্যাদির মতো অসুখের অবস্থা আরও খারাপ হয় তাছাড়া শীতকালে মানুষের হার্ট অ্যাটাকের শিকার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। এসব সমস্যা থেকে রেহাই পেতে শীতকালে স্বাস্থ্য সচেতনতা জরুরি। তাই শীতকালে শরীর সুস্থ রাখার সেরা কয়েকটি স্বাস্থ্য টিপস রয়েছেঃ

খাদ্য তালিকায় শাকসবজি রাখুনঃ

আমাদের দেশে শীতের সময় প্রচুর শাকসবজি পাওয়া যায়। সুলভ মূল্যে পাওয়া এসব শাকসবজি শরীরের জন্য খুবই উপকারী। শাকসবজিগুলোর মধ্যে ফুলকপি,বাঁধাকপি, টমেটো, শালগম, মুলা, লাউ, বেগুন, ধনেশাক এবং পালংশাক অন্যতম। এসব শাক সবজি আমাদের শরীরের ভিটামিনের অভাব পূরণ করে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। তাই শরীর সুস্থ রাখতে খাবার তালিকায় শীতকালে প্রচুর শাকসবজি রাখা উচিত।

পর্যাপ্ত জল পান করুনঃ

শীতকালে প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণ জল পান করা শরীরের জন্য ভালো।এটি শরীরকে ডিহাইড্রেটেডশনের হাত থেকে রক্ষা করে। পরিমিত জল পানের ফলে প্রস্রাবের সাথে বর্জ্য বের হয়ে যায়। আমাদের টক্সিন অপসারণ কোষগুলিতে পুষ্টি সরবরাহ করে শরীরের ভারসাম্য বজায় রাখতে সহায়তা করে। তাই শীতকালে তৃষ্ণার্ত না হলেও পর্যাপ্ত পরিমাণে জল খাওয়া ভালো। এতে আপনি শীতের অনেক অসুস্থতা এড়াতে পারেন।

স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখুনঃ

শীতকালে চর্মরোগ বেশি দেখা দেয়। তাই চর্মরোগ সহ অন্যন্য রোগের সংক্রমণ থেকে দূরে থাকতে নিয়মিত আপনার হাত ধুয়ে নিন। খাওয়ার আগে, ওয়াশরুম ব্যবহার করার পরে এবং দূষিত জিনিস স্পর্শ করার পরে অবশ্যই ভালোভাবে হাত ধুয়ে ফেলুন। তাছাড়া বাইরে থেকে বাড়িতে আসার পর ছোট বাচ্চাদের হাত ধোয়ার জন্য উৎসাহিত করুন।

স্বাস্থ্যকর খাদ্য গ্রহণঃ

শীতকালে শরীরের তাপমাত্রা কমে যায়। সে সময় খাবারের তালিকায় গোটা শস্য, চর্বিহীন মাংস, মাছ, মুরগি, লেবু, বাদাম এবং বীজ, ভেষজ এবং মশলা সহ প্রচুর পরিমাণে তাজা ফল এবং শাকসবজি রাখা উচিত। এসব খাদ্য শরীরের তাপমাত্রা বৃদ্ধি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির করার জন্য অপরিহার্য।

ত্বকের যত্ন নিনঃ

শীতকালে ত্বকের ক্ষতি সবচাইতে বেশি হয়। যার ফলে ত্বক শুষ্ক,চুলকানি ঠোঁট ফাটা ইত্যাদি রোগ দেখা দেয়। শীতকালে ত্বকের যত্নের মধ্যে অবশ্যই ময়েশ্চারাইজিং, সুরক্ষা ক্রিম প্রয়োগ করা উচিত।তাছাড়া শীতকালে পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করাও ত্বকের জন্য উপকারী।

প্রতিদিন ব্যায়াম করাঃ

শরীর সুস্থ রাখার জন্য শীতকালে নিয়মিত ব্যয়াম করা উচিত। যোগব্যায়ামের দৈনিক রুটিন বা যেকোনো ধরনের শারীরিক ব্যয়াম আপনার শরীরকে উষ্ণ রাখতে সহায়তা করবে। তাছাড়া নিয়মিত ব্যয়াম ফ্লু এবং সর্দি-কাশির মতো মৌসুমী অসুস্থতার বিরুদ্ধে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াবে।


Comment As:

Comment (0)