মানসিক বিষণ্ণতা দূর করার

মানসিক বিষন্নতা দূর করার প্রাকৃতিক উপায়।

মানসিক বিষণ্নতা অতি পরিচিত একটি সমস্যা। প্রাপ্তবয়স্ক থেকে কিশোর যে কোন বয়সের ব্যাক্তি মানসিক বিষণ্নতা জনিত সমস্যায় ভূগতে পারেন।  মানসিক বিষণ্ণতার নির্মূলের জন্য প্রচলিত থেরাপি  ব্যবস্থা প্রাকৃতিক চিকিৎসা ব্যবস্থা দুটোই রয়েছে। তবে প্রাকৃতিক চিকিৎসা ব্যবস্থার মাধ্যমে ঔষধ ছাড়াই বিষন্নতা দূর করে স্থায়ী সমাধান করা সম্ভব। মানসিক বিষন্নতা দূর করার প্রাকৃতিক উপায়সমূহ।

০১। ব্যয়ামঃ

মানসিক বিষণ্নতার সঠিক কারণগুলি জানা কঠিন হলেও এটা সর্বজনবিদিত যে মানসিক বিষন্নতা দূর করার সবচাইতে ভালো উপায় ব্যয়াম করা। কারণ ব্যয়াম করার মাধ্যমে আপনি ব্যস্ত থাকছেন যার ফলে বিষন্নতা থেকে সহজেই রেহাই পেতে পারেন। একটি গবেষণায় দেখা যায়, ব্যয়াম  হৃদস্পন্দনকে উদ্দীপিত করে শারীরিক এবং মানসিক উভয় স্বাস্থ্য ভালো রাখে। ব্যয়াম মানসিক বিষন্নতা দূর করতে খুবই কার্যকরী সহজ।

০২। প্রকৃতিতে সময় কাটানঃ

আপনার মন যদি খুব খারাপ থাকে তাহলে তার জন্য প্রকৃতিতে সময় কাটান খুব ভালো লাগবে। আপনি যদি শহরে থাকেন তাহলে কোন পার্কে বা ট্যুরিং স্পটে বেড়াতে যেতে পারেন গ্রামে থাকলে কোন খোলা মাঠে, নদীর পাড়ে, গাছের ছায়ায় সময় কাটান মানসিক বিষন্নতা দূর হয়ে যাবে। আমেরিকান সাইকোলজিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (APA) দ্বারা করা গবেষণা থেকে জানা যায় প্রকৃতিক পরিবেশ মন ভালো রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

০৩। খেলাধূলা করুনঃ

আপনি লক্ষ্য করে দেখবেন মানসিক বিষন্নতার কারণে অতিরিক্ত চিন্তা বেড়ে যায়। যা মানসিক বিষন্নতাকে আরো বাড়িয়ে তুলে। তাই মানসিক বিষন্নতা দূর করার জন্য আপনাকে সব সময় ব্যস্ত থাকতে হবে। সে জন্য খেলাধূলা করতে পারেন সেটা হতে পারে আপনার পরিবারের সদস্যদের সাথে অথবা খেলার মাঠে।তাছাড়া মানসিক বিষন্নতা দূর করার জন্য শিশুদের সাথেও খেলাধূলা করে সময় কাটাতে পারেন। কায়িক পরিশ্রম হয় এমন খেলাধূলা মানসিক বিষন্নতা রোধে খুবই কার্যকরী।

০৪। ধ্যান করুনঃ

ধ্যান করা বিষণ্নতা সহ একাধিক মানসিক স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে অবিশাস্য উপকারী। ধ্যন আপনার মনকে শান্ত করে মননশীলতা মেডিটেশনের মাধ্যমে শ্বাস-প্রশ্বাসে ফোকাস করে আপনার মেজাজ এবং আপনার বিষণ্নতা রোধে উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলতে পারে।

০৫। পর্যাপ্ত ঘুমানোঃ

অনেক গবেষণায় দেখা গেছে ঘুমের সমস্যা এবং মানসিক বিষণ্নতা একই সাথে যুক্ত। অনেক সময় ঘুমের সমস্যাই গুরুতর বিষণ্নতার মূল লক্ষণ হিসাবে বিবেচিত হয়। তাই পর্যাপ্ত ঘুমের চেষ্টা করুন। কারণ পর্যাপ্ত ঘুম আপনার বিষণ্নতার লক্ষণগুলিকে দূর করতে পারে এবং জীবনের অন্যান্য ক্ষেত্রেও ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে।

মানসিক বিষন্নতা দূর করতে ব্যয়াম, প্রাকৃতিক পরিবেশ বেড়াতে যাওয়া, খেলাধূলা করা, ধ্যান করা বা পর্যাপ্ত ঘুমের পাশাপাশি কেনাকাটা করা, রেস্টুরেন্টে খেতে যাওয়া, বন্ধুদের সাথে সময় কাটানো গুরুত্বপূর্ণ।


Comment As:

Comment (0)