পেশা নির্বাচন করার ক্ষেত্রে নতুনভাবে চিন্তা করতে হবে।

অত্যন্ত দুঃখজনক হলেও সত্যি যে বর্তমান সমাজে লেখাপড়া করার প্রধান উদ্দেশ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে সরকারি চাকরি করা।তাই পেশা নির্বাচন করার ক্ষেত্রে নতুনভাবে চিন্তা করতে হবে।অনেক উন্নত দেশে  লেখাপড়া করার মূল উদ্দেশ্যে হচ্ছে জ্ঞান আরোহন, আত্মউন্নয়ন নিজের দক্ষতা উন্নয়ন করা। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি কারিগরি শিক্ষাকে সেখানে ব্যাপক ভাবে গুরুত্ব দেওয়া হয়। আমাদের দেশের সকল শ্রেণীর পিতামাতার সন্তানদের লেখাপড়ার করানোর একমাত্র উদ্দেশ্যে সরকারি চাকরি অথবা ডাক্তার ইঞ্জিনিয়ার বানানো।

ছোটবেলা থেকে শিক্ষা দেওয়া হয় যে লেখাপড়া করে  সরকারি চাকরি করতে হবে। অথচ আমদের দেশের লেখাপড়া জানা জনবলের  সর্বোচ্চ % মানুষকে সরকারি চাকরি দেওয়া সম্ভব। বাকি ৯৫% শিক্ষিত লোকদের সরকারি চাকরি পাওয়া সম্ভব না।  ফলে দেখা যায় ১৫/২০ বছর লেখাপড়া করার পর সরকারী চাকুরী পাওয়া যায় না আবার চাকরী পেলেও দক্ষতার অভাবের কারণে কর্মক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হয়।এসএসসি, এইচএসসি মাষ্টার অনার্স লেখাপড়া করা মানুষগুলো চাকরি না পেয়ে মানসিক হীনমন্যতা বিষন্নতায় ভোগে। অনেকে চাকরি না পেয়ে অত্মহত্যার মত জঘন্য পথ বেচে নেয়। 

অন্যদিকে বর্তমানে আমাদের দেশের অনেক প্রতিষ্ঠান তাদের কোম্পানীর জন্য দক্ষ জনবল পাচ্ছে না, ফলে তারা দেশের বাইরে থেকে দক্ষ জনবল আনতে বাধ্য হয়। সরকারি চাকরি কিংবা ডাক্তার ইন্জিনিয়ার ছাড়াও হাজারো শত পেশায় যে ক্যরিয়ার গঠন করা যায় নিচে সে রকম কিছু পেশার নাম দেওয়া হল।

আইনজীবী, রাজনীতিবিদ, লেখক, বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা, কৃষি সেক্টরের কাজ, কম্পিউটার ইন্জিনিয়ারিং, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং, কার ইন্জিনিয়ারিং,  মোবাইল ইন্জিনিয়ারিং, উদ্ভাবনী বিভিন্ন জ্ঞান, অনলাইন সেক্টরের বিভিন্ন কাজ-ওয়েবসাইট ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট, গ্রাফিক্স ডিজাইন, এ্যপস ডেভেলপমেন্ট, ডিজিটাল মার্কেটিং, সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ, ভিডিও অডিও এ্যডিটিং,  ইউটিউব ভিডিও তৈরী করার কাজ করে দক্ষতা অর্জন করে ৫০,০০০ হইতে তদুদ্ধ অর্থ উপার্জন করা মনের মত পেশা নির্বাচন করা সম্ভব।

 

পরিশেষে আমাদের তরুণ প্রজম্মদের দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করতে হবে, গতানুতিক চিন্তধারার বাইরে আমাদের চিন্তা করতে হবে,তরুণদের মধ্যে অনেক বড় কিছু করার ক্ষমতা আছে শুধু ছোট কিছু করার মন মানসিকতা ত্যাগ করতে হবে, তবেই এগিয়ে যাবে সমাজ দেশ।


Comment As:

Comment (0)