নারী

নারীদের ক্যারিয়ার গঠনের অন্যতম বাধা আমাদের সমাজ ব্যবস্থা।

প্রত্যেক মানুষের ক্ষেত্রেই ক্যারিয়ার গঠন করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সে মেয়ে হোক বা ছেলে। কারণ এই সমাজে নিজের পায়ে দাঁড়াতে না পারলে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। বিশেষ করে নারীদের ক্যারিয়ার গড়া আজকের দিনে খুব প্রয়োজন। নিজের ব্যাক্তিত্ব বজায় রাখার জন্য। নিজের স্বাধীনতা সমাজে একটি নির্দিষ্ট জায়গা তৈরি করার জন্য।

এইতো কিছু বছর আগেই নারীদের নিজেদের ক্যারিয়ার গঠনের তো দূরের কথা পড়াশোনা করার সুযোগ টুকুই পেত না। মেয়েরা শুধু ঘরেই মানায় এমন একটা ধারণা ছিল। রান্না করা সংসার করা আর কিছু না। আজ সমাজ বদলেছে। মানুষের ধারণার পরিবর্তন হয়েছে। সরকার নারীদের পড়াশোনার সুযোগ করে দিয়েছে। তারপরেও ছেলেদের তুলনায় নারীরা অনেক পিছিয়ে রয়েছে। আর তার কারণ হচ্ছে আমাদের সমাজ ব্যবস্থা।

যদিও আগের তুলনায় সমাজ ব্যবস্থা পরিবর্তিত হয়েছে। তবুও ছেলেদের তুলনায় নারীদের আলাদা চোখে দেখা হয়। আর এই কারণেই নারীরা আজও ক্যারিয়ার গঠনের দিক দিয়ে পিছিয়ে। মেয়েদের ক্যারিয়ার গড়ার পথে নানা ধরনের বাধা রয়েছে। দেশে পুরুষ ক্যারিয়ার গঠনের জন্য যতটা সফল হয় নারীরা ততটা না। দেশের উন্নতি হয়েছে ঠিক। মেয়েদের পড়াশোনা সু্যোগ রয়েছে তারপর তারা পিছিয়ে।

আমাদের এই শিক্ষিত সমাজে অনেক পরিবারে ছেলে মেয়েদের আলাদা চোখে দেখা হয়। তাদের ভাবনায় এমন কথা থাকে নারীদের লেখাপড়া করে কি হবে! সেই তো বিয়েই দিতে হবে। মেয়েদের পিছনে এতো টাকা ব্যায় করে কি দরকার! আর অন্য দিকে ছেলেদের কথা চিন্তা করলে তারা ভাবে। সে ছেলে ভালো করে পড়াশোনা করাতে হবে ভালো চাকরি করতে হবে। বৃদ্ধ বয়সে তাদের ছেলেরাই তাদেরকে দেখবে। তাই মেয়েদের থেকে ছেলেদের পড়াশোনা কারানোই ভালো। মেয়েদের ক্ষেত্রে এই ভাবনা থাকে না।

তাছাড়া তারা সামাজিক নিরাপত্তার অভাবে কিছুটা পিছিয়ে রয়েছে। কারণ একটি ছেলে যতটা স্বাধীন নিরাপদ নারীরা ততটা না মেয়েদের বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। যানবাহনে যাতায়াত করতে বা নির্জন রাস্তা দিয়ে মেয়েরা নিরাপদে যাতায়াত করতে পারে না। এক্ষেত্রে মেয়েরা অনেক সময় ইভটিজিং নয়তো ধর্ষণের শিকার হতে হয় আর এসবের ভয়ে আজ মেয়েরা নিজেদের লক্ষ্য উদ্দেশ্যে সফল হয়ে উঠতে পারে না। মেয়েদের পূর্ণ ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও তারা এগিয়ে যেতে পারছে না বিভিন্ন ধরনের বাধা তাদের ঘিরে ধরে।

তাছাড়া নির্দিষ্ট গাইডলাইনের অভাবে তাদের পিছিয়ে পড়তে হয়। বিয়ের আগে পরিবার এবং বিয়ের পর স্বামী তার পরিবার বাঁধা দিয়েই থাকে। কিন্তু মেয়েদের পরিবার সে সব সমস্যা সমাধানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। তবে এসব বাঁধা মেয়েদের নিজেকেই অতিক্রম করতে হবে।

নিজের ক্যারিয়ার গড়তে হলে সবকিছুর সম্মুখীন হওয়ার সাহস রাখতে হবে। নিজের লক্ষ্যে অটুট থাকতে হবে। সাফল্যের পথে নানা ধরনের বাধা আসবেই। সব বাঁধা সরিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। হয়রানির শিকার হওয়ার ভয়ে ভীত হয়ে নিজের লক্ষ্য থেকে সরে আসলে চলবে না। লক্ষ্য স্থীর রাখতে হবে যে আমি পারবো, আমাকে পারতেই হবে। নিজের ক্যারিয়ার নিজেই গড়তে হবে। নিজের সাথে নিজেই আগে যুদ্ধ করতে হবে তাহলেই বাহিরের সব বাঁধা অতিক্রম করা সম্ভব হবে।

লেখিকাঃ বন্যা রাণী সরকার

বিশিষ্ট নারী অধিকারকর্মী


Comment As:

Comment (0)