ধনী না হওয়ার কারণ

আপনি ধনী হতে পারছেন না কেন ১০ টি কারণ জেনে নিন।

আমাদের চরিত্রের একটি নেতিবাচক দিক হলো আমরা বেশিরভাগ সময় সমস্যা নিয়ে ভাবি। কিন্তু তা সমাধান করার জন্য চিন্তাভাবনা করি না। যার কারণে আমাদের সমস্যাগুলো আরো জটিল হয়ে পড়ে। একদিকে আমরা সকলেই ধনী হতে চাই। কিন্তু অন্যদিকে কেন আমরা ধনী হতে পারছি না মূল সমস্যাগুলো কোন জায়গায় তা নিয়ে ভাবি না। সমস্যাগুলো শনাক্ত করে সে অনুযায়ী কাজ করি না। তাই আজকের পোষ্টে কেন আপনি ধনী হতে পারছেন আপনার ধনী না হওয়ার ১০ টি কারণ সম্পর্কে আলোচনা করব।

অনুপ্রেরণার অভাবঃ

আপনার ধনী না হওয়ার অন্যতম প্রধান কারণ অনুপ্রেরণার অভাব। জীবনে যদি বড় কিছু করতে চান, অনুপ্রেরণা হল তার মূল চালিকা শক্তি। নিজেকে প্রশ্ন করুন কেন আপনি ধনী হতে চান। এমন একটি কারণ বের করুন যার কারণে আপনি ধনী হতে অনুপ্রেরণা পান। ধনী হতে গেলে অনুপ্রেরণা খুবই জরুরি। কারণ বেশিরভাগ মানুষ অনুপ্রেরণার জন্য ধনী হতে পারে না।

সমর্থন পাওয়ার অভাবঃ

আপনার গরিব থাকার আরেকটি কারণ হচ্ছে সমর্থন না পাওয়া। বিশেষ করে আমাদের দেশে এটি মারাত্মক  সমস্যা। আমাদের যদি একটু আলাদা কিছু করতে চাই তাহলে কারো সমর্থন পাওয়া যায় না। মা বাবা,আত্মীয় স্বজন,বন্ধু বান্ধবের কাছে একটু সমর্থন পেলে জীবনে অনেক ভালো কিছু করা সম্ভব। অনেক সময় আপনাকে সমর্থন না করার জন্য পিছিয়ে পড়তে হয়।

জীবনে অর্জনযোগ্য লক্ষ্য না থাকাঃ

আপনার ধনী না হওয়ার আরেকটি কারণ জীবনে অর্জনযোগ্য লক্ষ্য না থাকা। আপনার যদি জীবনের লক্ষ্য না থাকে তাহলে কি অর্জন করবেন। তাই আপনি ০৫ বছর পর নিজেকে কোন অবস্থানে দেখতে চান তার লক্ষ্য স্থির করুন। ছোট ছোট লক্ষ্য নির্ধারণ করুন, টাইমলাইন সেট করুন। সেগুলি অর্জন করার চেষ্টা করুন সহজেই ধনী সফল হতে পারবেন।

সময় ব্যবস্থাপনার দক্ষতার অভাবঃ

আপনার দরিদ্র হওয়ার আরেকটি কারন সময় ব্যবস্থাপনার দক্ষতা না থাকা। প্রতিদিনের রুটিন তৈরি করুন। কোন কাজটি কত সময় ধরে কিভাবে করবেন তার ব্যবস্থাপনা দক্ষতার সাথে করুন। বিশেষ করে প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে  উঠে কাজ শুরু করুন।আপনি সহজেই ধনী হওয়ার জন্য আরো মনোনিবেশ করতে পারবেন।

সৌখিন জীবনযাপনঃ

সৌখিন জীবনযাপন ধনী হওয়ার পথে অন্যতম বাধা। আপনার যদি হাতে টাকা আসলেই নতুন মোবাইল, নতুন গাড়ি কিংবা শুধুই খরচ করতে মন চায় তাহলে তা আপনাকে ধনী হতে দিবে না। কারণ সৌখিন জিনিসপত্র কেনা একটি দায় এটা থেকে কোন অর্থ আসবে না। তাছাড়া সৌখিন জিনিসপত্র কেনাকাটার কারণে আপনি অর্থ সঞ্চয় করতে পারছেন না। তাই সৌখিন জীবনযাপন আপনাকে গরিব করে দিচ্ছে।

একটি আয়ের উপর নির্ভরশীল থাকাঃ

একটিমাত্র আয়ের উপর নির্ভর থাকলে একটি পথ থেকেই আয় হবে। আপনি গরিব থাকার প্রধান কারণ হল একটি আয়ের উপর নির্ভরশীল থাকা। আপনাকে ধনী হতে গেলে আয় বৃদ্ধির চেষ্টা করতে হবে। আপনার যদি বিকল্প আয়ের ব্যবস্থা না থাকে তাহলে সারাজীবন গরিব থাকবেন। তাই আপনি যদি ধনী হতে চান তাহলে বাড়তি আয় বৃদ্ধি করুন।

নিজের ভুলের জন্য অন্যের উপর দোষারুপঃ

আপনি সবকিছুতে অন্যের উপর দোষ খুজেন? তাহলে এই অভ্যাসটি আপনাকে গরিব করছে। অপর কোন লোককে দোষারূপ করার মাধ্যমে আপনি নিজের ব্যর্থতা ঢাকার চেষ্টা করছেন। আপনি যদি ধনী হওয়ার জন্য কিছু করতে চান তাহলে বাঁধার সম্মুখীন হবেন।  আর সে সময় যদি বাঁধাগুলো সমাধান না করে শুধু দোষারুপ করেন তাহলে কিভাবে ধনী হবেন।

উপার্জনের চেয়ে বেশি ব্যয় করাঃ

আমাদের দেশের অনেক লোকজনের মধ্যে এই অভ্যাসটি রয়েছে। তাদের আয় অনুযায়ী ব্যয় করেন না। আপনারও যদি মাসিক আয়ের তুলনায় ব্যয় বেশি হয় তাহলে তার কারণে দিন দিন গরিব হয়ে পড়ছেন। তাই আয় অনুযায়ী ব্যয় করুন। সবচেয়ে ভালো হয় যদি আপনি প্রতিদিনের আয় ব্যয়ের হিসাব রাখেন।

ব্যর্থ হওয়ার ভয়ঃ

ব্যর্থ হতে ভয় পান তাহলে হয়তো এই কারণে আপনি ধনী হতে পারছেন না। অনেক লোক রয়েছে যারা নতুন কিছু করতে চান কিন্তু শুধুমাত্র ব্যর্থ হওয়ার ভয়ে কিছু করতে পারছেন না। অথচ ব্যর্থ না হয়ে সফল হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম, ব্যর্থতাই সফলতার চাবিকাঠি! সব সময় মনে রাখবেন প্রতিটি ব্যর্থতা আপনার সফলতার রাস্তা সুগম করবে।

আগে সঞ্চয় না করাঃ

আপনি সম্ভবত নিজের অর্জিত অর্থ ব্যয় করার পর  সঞ্চয় করার চেষ্টা করেন। যা আপনাকে ধনী হতে দিচ্ছে না। কারণ বেশিরভাগ সময় অর্জিত অর্থ ব্যয় করার পর সঞ্চয় করার মত পর্যাপ্ত অর্থ থাকে না। তাই যদি ধনী হতে চান তাহলে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ সঞ্চয় করে তারপরে ব্যয় করুন।


Comment As:

Comment (0)